বিশ্বের সেরা ১০টি উষ্ণ দ্বীপ

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
1

সমুদ্র সৈকতের কোনো তুলনা হয় না। মানুষ, সমুদ্র, মাথার উপরের ওই সূর্য আর পায়ের তলার বালি সব কিছুই এখানে মিলে মিশে এক হয়ে যায়। ঢেউয়ের গর্জনের পাশাপাশি সৈকতের নির্মল বাতাসে সবাই মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে নিজেকে হারায়। এই হারানোতে লাভ আছে বৈকি। কেননা যদি নাই হারান, তবে নিজেকে খুঁজে পাবেন কী করে!

এখানে প্রতিটা ঢেউয়ের মতোন জীবনের প্রত্যেক মুহূর্ত নতুন। এই বৈচিত্র্যই সম্ভবত আমাদের দূর দূরান্ত থেকে সমুদ্রের কাছে টেনে নিয়ে আসে। আর শীতকালে সমুদ্রযাত্রার বিকল্প কিছুই হতে পারে না। সবার মতো আমারও বেশ সমুদ্র প্রীতি রয়েছে। এই বেশ মানে অনেক, তীব্র এবং প্রচণ্ড। এক দিন ঠিক তল্পিতল্পা গুছিয়ে উষ্ণ কোনো দ্বীপে চলে যাব। তবে এখনো দ্বীপ বাছাই চলছে। বিভিন্ন দ্বীপের সন্ধানে গিয়ে এমন ১০টি ক্রান্তীয় দ্বীপের খোঁজ পেলাম যা সবার জন্যই চমৎকার ভ্রমণ গন্তব্য হতে পারে। আজ ক্রান্তীয় অর্থাৎ উষ্ণমণ্ডলীয় অঞ্চলের সেরা ১০টি দ্বীপ সম্পর্কে জানাবো।

১। সিচেলিস

আফ্রিকার পূর্ব উপকূলে অবস্থিত সিচেলিসের দ্বীপগুলো স্রষ্টা যেন স্বর্গের আদলে তৈরি করেছেন। আমাকে সব কিছুর পরিবর্তে এখানে সৈকতের নিকটবর্তী কুঁড়েঘরে থাকতে বলা হলে দ্বিতীয় বার চিন্তা করবো না। এখানে রয়েছে অসংখ্য দ্বীপ। প্রায় সব দ্বীপেই রয়েছে চমৎকার পানি আর বেলাভূমি। সেই সঙ্গে রয়েছে আমাদের পরম কাম্য নির্জনতার প্রাচুর্য।

এখানে প্রায় ১১৫টি দ্বীপেই সমুদ্রে-প্রেমীদের আকাঙ্ক্ষিত প্রায় সব কিছুই রয়েছে। তবে এই দ্বীপগুলো বেশ ব্যয়বহুল। তবে স্বর্গ ভ্রমণে এতটুকু খরচ করা যায়। মে থেকে সেপ্টেম্বর মাস এই সিচিলেস ঘুরে আসার জন্য উপযুক্ত সময়।

সিচেলিস, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

২। মালদ্বীপ

ভারত মহাসাগরের বুকে হাজারো দ্বীপ নিয়ে গঠিত হয়েছে ভূস্বর্গ মালদ্বীপ। দেশটির রাজধানী মালে। এত দ্বীপের মধ্যে মাত্র পাঁচটিতে জনসংখ্যা চোখে পড়ে। মালদ্বীপ বিশ্বের সবচেয়ে নিচু দেশ। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে মালদ্বীপের সর্বোচ্চ উচ্চতা মাত্র দুই দশমিক তিন মিটার। এখানকার কোরাল প্রবাল প্রাচীরগুলো সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে সামান্য উচ্চতায় নিজেদের অস্তিত্ব জানান দিচ্ছে।

২০০৪ সালের সুনামিতে এখানকার অনেক দ্বীপ একেবারে তলিয়ে গিয়েছে। নভেম্বর থেকে মে মাসে যখন আবহাওয়া ঠাণ্ডা ও শুষ্ক থাকে তখন মালদ্বীপ যাবার আদর্শ সময়। সরকার এখানে ফ্ল্যাশ ফ্লাড প্রতিরোধে বাঁধ তৈরি করেছে। এখানে ভ্রমণ বেশ ব্যয়বহুল। তবে থাইল্যান্ড থেকে মালদ্বীপ আসতে সস্তায় এয়ার টিকিট পাওয়া যায়।

মালদ্বীপ, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

৩। কো লিপে

থাইল্যান্ডের এই দ্বীপটির বন্ধুসুলভ মানুষগুলো পর্যটকদের অবাক করে। তাদের সংস্কৃতি, আচরণ, দ্রুত বন্ধু হয়ে ওঠার ক্ষমতা সত্যি মনোমুগ্ধকর। কো লিপে দ্বীপটি এতই ছোট যে পায়ে হেঁটেই পুরোটা ঘোরা যায়।

মোট চারটি দ্বীপের সমন্বয়ে এটি গঠিত। আর এখানকার মানুষের বড় একটা অংশ মৎস্যজীবী। নভেম্বর থেকে মার্চ মাসে এখানকার আবহাওয়া সব থেকে ভালো থাকে। মনে রাখবেন অক্টোবর মাসে অর্থাৎ বর্ষাকালে দ্বীপটি বন্ধ হয়ে যায়।

কো লিপে, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

৪। বালি

ইন্দোনেশিয়ার কথা বললে, প্রথমেই যে জায়গার কথা মনে পড়ে, সেটি হলো বালি। বালির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, পরিবেশ, এখানকার মন্দির, অধিবাসী ও সংস্কৃতি মানুষকে বিশেষভাবে আকর্ষণ করে। দ্বীপটির আয়তন প্রায় ৫,৭৮০ বর্গ কিলোমিটার। এখানে সার্ফিং করা যায়, আগ্নেয়গিরি পর্বতে চড়া যায়।

সেই সঙ্গে দর্শনীয় চমৎকার সব মন্দির আপনার ভ্রমণ অভিজ্ঞতাকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে। আর এখানে ভ্রমণের খরচও তুলনামূলক কম। এখানে সারা বছরই পর্যটকরা ভিড় করেন। তবে এপ্রিল থেকে অক্টোবর মাস বালি যাবার আদর্শ সময়।

কো লিপে, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

৫। ফিজি

৩৩০টিরও বেশি দ্বীপ নিয়ে গঠিত দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরের দ্বীপরাষ্ট্র ফিজি। তবে দেশটির ১১০টি দ্বীপেই জনবসতি নেই। সব দ্বীপ মিলিয়ে মোট আয়তন ১৮ হাজার ২৭৪ বর্গকিলোমিটার। তরুণ ও নব দম্পতিদের জন্য ফিজি অত্যন্ত জনপ্রিয় গন্তব্য। এখানে সারা বছরই পর্যটকরা আসেন। তবে নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে এখানে ঘূর্ণিঝড়ের প্রকোপ দেখা দেয়।

ফিজি, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

৬। তাহিতি

ক্রান্তীয় অঞ্চলের পানির উপরে যে ভাসমান বাংলোর ছবি আমরা হরহামেশাই দেখি ওটাই তাহিতি। স্থানীয় ভাষায় তাহিতি মানে ক্রান্তীয় স্বর্গ। এটি বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় হানিমুন ডেসটিনেশন। এখানে সূর্যের নরম রোদে বিশ্রাম নিতে পারবেন, পাবেন চমৎকার সব সি ফুড আর স্কুবা ডাইভিং করার সুযোগ। এই দ্বীপটি অত্যন্ত ব্যয়বহুল। দ্বীপটি বছরের সব সময়ই উষ্ণ থাকে। তবে মে থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এখানে শীতকাল ধরা হয়।

তাহিতি, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

৭। বিগ আইল্যান্ড হাওয়াই

হাওয়াই এর বিগ আইল্যান্ডে আপনি যা করতে চান, তাই পাবেন। তবে অন্য সব দ্বীপ থেকে এটি ভিন্ন। কারণ এখানে রয়েছে ভলকানিক ন্যাশনাল পার্ক। এখানে রয়েছে আগ্নেয়গিরি অনুসন্ধান সহ লাভা টিউবে চড়ার সুযোগ। এখানে লাভা সমুদ্রের সঙ্গে মিশে যাওয়ার অদ্ভুত দৃশ্য দেখতে পাবেন। এই দ্বীপে অনেক ঝর্ণাও আছে। এখানে অক্টোবর থেকে মার্চ বর্ষাকাল। এখানে একেক সময় একেক রকম অভিজ্ঞতা পাবেন, তাই বছরের যে কোনো সময়ই এখানে নতুন কিছু উপভোগ করার সুযোগ রয়েছে।

বিগ আইল্যান্ড হাওয়াই, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

৮। দ্য কুক আইল্যান্ডস

কুক আইল্যান্ডস হলো দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ। এখানে বেশি মানুষের সমাগম হয় না। এই ছোট দ্বীপগুলোকে জেমস কুক নামের এক ব্যক্তির নামে নামকরণ করা হয়েছে। তিনি এই দ্বীপগুলো আবিষ্কার করেছিলেন। আধুনিক জীবন থেকে দূরে যেতে চাইলে কুক আইল্যান্ডস আপনার আদর্শ গন্তব্য হতে পারে। এখানকার আবহাওয়া সারা বছরই উষ্ণ ও আর্দ্র থাকে।

দ্য কুক আইল্যান্ডস, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

৯। কুরাসাও

এই দ্বীপটি ক্যারিবিয়ান সাগরে অবস্থিত। তবে কুরাসাও ডাচ মালিকানাধীন। এখানে গেলে মনে হবে এক টুকরো হল্যান্ডে চলে এসেছেন। তবে এটি ক্রান্তীয় অঞ্চল। ডাচ ভঙ্গিমায় এখানকার বাড়ি ঘর তৈরি করা হয়েছে।

এখানে বিনোদনের প্রায় সব ব্যবস্থাই আছে। তবে এখানে বিনোদনের সব কিছু পাবলিক প্লেসে হওয়ায় প্রাইভেসি কম। এখানে সারা বছরই আবহাওয়া রৌদ্রোজ্জ্বল এবং উষ্ণ থাকে। এখানে নভেম্বর থেকে জানুয়ারি মাসে বৃষ্টি হয়।

কুরাসাও, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

১০। পেরেনঅতিয়ান আইল্যান্ডস

মালয়েশিয়ার পূর্ব তীরে এই দ্বীপটি অবস্থিত। এখানে মূলত দুটি দ্বীপ রয়েছে। দুটো দ্বীপই চমৎকার। এখানে অনেক পাম গাছ, বিস্তৃত সমুদ্র সৈকত আর স্বচ্ছ নীল পানি রয়েছে। এখানে তেমন কিছু করার নেই। দর্শনার্থীরা এখানে সারাদিন রোদের নিচে শুয়ে থাকে। মার্চ থেকে অক্টোবর মাসে এখানে তীব্র বৃষ্টি হয়। অন্য সময়ে ঘোরাঘুরির জন্য দ্বীপটি চমৎকার।

পেরেনঅতিয়ান আইল্যান্ডস, ছবি সূত্রঃ nomadicmatt

ভ্রমণের জন্য অগণিত উষ্ণ ক্রান্তীয় দ্বীপ রয়েছে। এমনকি, এক জীবনে এতগুলো দ্বীপে যাওয়াও সম্ভব নয়। আমি মনে করি আপনি এই ১০টি দ্বীপ দিয়ে শুরু করতে পারেন।

ফিচার ইমেজ- nomadicmatt

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
1
Booking.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *