কোস্টারিকার সাত ঝর্ণার সাতকাহন!

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

ফুটবল ভক্ত হয়ে থাকলে কোস্টারিকা নামটি নিশ্চয়ই শুনে থাকবেন। কেন্দ্রীয় আমেরিকায় অবস্থান করা ছোট্ট এই দেশটি রূপে গুণেও অনন্য! কোস্টারিকায় আছে বিস্ময়কর সব আগ্নেয়গিরি আর অসাধারণ সব সৈকত। মনের আনন্দে সার্ফিং করতে চাইলে নির্দ্বিধায় চলে আসতে পারেন এখানে। চোখ ধাঁধানো সবুজের সমারোহ দেখতে পাবেন দেশটির ন্যাশনাল পার্কগুলোতে। শান্তির পরশ বুলিয়ে দেয়া অসংখ্য বুনো ঝর্ণাও আছে কোস্টারিকায়। এমনই কয়েকটি ঝর্ণা সম্পর্কে জেনে নিন এখনই।

১. রিও সেলেস্টে

রিও সেলেস্টে কোস্টারিকার এক অদ্ভুত সুন্দর নদী। অনেকটা আমাদের দেশের শীতকালের লালাখালের মতো! কীভাবে? এই নদীর পানির রঙও লালাখালের মতোই নীল! রিও সেলেস্টে নদীতে গিয়েই মেশে কাঁচের মতো স্বচ্ছ পানির রিও সেলেস্টে ঝর্ণা। নদীর নামেই নামকরণ করা হয়েছে অপরূপ এই ঝর্ণার।

ছবিঃ রিও সেলেস্টের স্বছ জলধারা মিশেছে নীল পানির সেলেস্টে নদীর সাথে, সূত্রঃ two weeks in costa rica

রিও সেলেস্টে ঝর্ণাটি দেখতে হলে আপনাকে যেতে হবে টেনোরিও ভলকানো ন্যাশনাল পার্কে। গুয়ানাকাস্তে প্রদেশে অবস্থান করছে জীববৈচিত্র্যে ভরপুর এই পার্ক। পার্কটিতে পৌঁছে এক ঘণ্টা হাইক করে সামনে এগিয়ে গেলেই পাবেন রিও সেলেস্টের দেখা।

ডিসেম্বর থেকে
এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে এলেই রিও সেলেস্টে নদীর নীল রঙ দেখতে পাবেন।  

সেই সাথে বর্ণহীন বিপুল
জলধারার তীব্রতা, নীল শান্ত জলরাশিতে বিলীন হয়ে যাওয়ার দৃশ্যটি আপনার মনে গেঁথে
থাকবে দীর্ঘদিন!

২. লানোস দে কর্তেজ

কোস্টারিকার সবচেয়ে সুন্দর ঝর্ণাগুলোর একটি এই লানোস দে কর্তেজ! আর এই ঝর্ণাটিও অবস্থান করছে গুয়ানাকাস্তে প্রদেশেই।

ছবিঃ অপরূপ লানোস দে কর্তেজের সৌন্দর্য উপভোগ করছেন দর্শনার্থীরা, সূত্রঃ two weeks in costa rica

গহীন অরণ্যের ভেতরে বেশ খানিকটা উঁচু থেকে গড়িয়ে পড়া এই বিস্তৃত ঝর্ণাটি দেখে বিমোহিত হতেই হবে আপনাকে! রাঙামাটি গিয়েছেন? মুপ্পোছড়া ঝর্ণায়? গভীরভাবে লক্ষ্য করলে লানোস দে কর্তেজের সাথে মুপ্পোছড়ার একটি ক্ষীণ সাদৃশ্যও পেয়ে যেতে পারেন!

কোস্টারিকায় এলে এই
ঝর্ণাটি দেখে যেতেই হবে আপনাকে!

৩. মন্টেজুমা

মন্টেজুমা দেশটির
সীমান্তবর্তী ছোট্ট একটি শহর। এই শহরের নামেই এখানে আছে তিন স্তর বিশিষ্ট মন্টেজুমা ঝর্ণা। ট্রেকিং করে ঝর্ণাটির একদম ওপরে ওঠার
সুযোগ আছে।

তবে এর পাহাড়ি সরু রাস্তাটি বেশ পিচ্ছিল। ওঠার সময় তাই সতর্ক থাকতে হবে আপনাকে।

ছবিঃ নীরব প্রকৃতির মাঝে অবস্থান করছে অসাধারণ মন্টেজুমা, সূত্রঃ anamaya resort

আর একবার উঠে যাওয়ার পর, ঝর্ণার ওপর থেকে যথেষ্ট সাহস সঞ্চয় করে, হাত পা ছড়িয়ে দিয়ে চিৎকার করে সোজা নিচে পানিতে ঝাঁপিয়েও পড়তে পারেন! সাঁতার জানা থাকলে আর অ্যাডভেঞ্চারের স্বাদ নিতে চাইলে মন্টেজুমা ঝর্ণা অপেক্ষা করছে আপনার জন্যই!

ছবিঃ মন্টেজুমার ওপর থেকে ঝাঁপিয়ে পড়তে পারেন পানিতে! সূত্রঃ two weeks in costa rica

৪. লা ফরচুনা

আকারে ছোটখাটো হলেও লা ফরচুনা ঝর্ণাটি বৈচিত্র্যময়! বিখ্যাত অ্যারেনাল ভলকানো ন্যাশনাল পার্কে এর অবস্থান।

ছবিঃ লা ফরচুনার চোখ ধাঁধানো ড্রোন ভিউ! সূত্রঃ two weeks in costa rica

লা ফরচুনায় এলে পাবেন স্নিগ্ধ প্রকৃতির ছোঁয়া। সেই সাথে অ্যারেনাল পার্কে আছে বিভিন্ন ধরনের অ্যাডভেঞ্চার এক্টিভিটির সুব্যবস্থা। পর্যটকদের মাঝে তাই এই ঝর্ণাটি বেশ জনপ্রিয়।

ছবিঃ এই পাথরগুলোর ওপর বসে লা ফরচুনাকে দেখে উদাস হয়ে যেতে পারেন! সূত্রঃ visit costa rica

৫. নাওইয়াকা

কোস্টারিকার গহীনে অবস্থান করা আরেকটি উল্লেখযোগ্য ঝর্ণা এই নাওইয়াকা। ঝর্ণাটিতে পৌঁছাতে হলে প্রায় দু’ঘণ্টা ট্রেকিং করতে হবে আপনাকে। আর এজন্যই সাধারণ পর্যটকেরা খুব একটা আসতে চান না এই ঝর্ণায়।

ছবিঃ অদ্ভুত সুন্দর নাওইয়াকা! সূত্রঃ drink tea and travel

এই ঝর্ণাটি অ্যাডভেঞ্চারপ্রিয়দের জন্য রীতিমতো স্বর্গ! বেশ কয়েকটি ধাপে ভাগ হয়ে থাকা এই নাওইয়াকা দেশটির অন্যতম সেরা ঝর্ণা। পৌঁছাতে হয়তো কিছুটা কষ্ট হতে পারে আপনার। তবে একবার পৌঁছে গেলে এই কষ্টটুকু কর্পূরের মতো বাতাসে মিলিয়ে যেতে বাধ্য!

৬. লা পাজ

বলিভিয়ার রাজধানী লা পাজের কথা বলছি না কিন্তু! বলছি “লা পাজ ওয়াটার গার্ডেনস” এর “লা পাজ” ঝর্ণাটির কথা! রাজধানী সান হোসে থেকে মাত্র আধ ঘণ্টার দূরত্বে অবস্থান করছে এই অপরূপ ঝর্ণাটি। এয়ারপোর্ট থেকে ট্যাক্সি ভাড়া করে সরাসরি চলে আসতে পারেন একে দেখতে।

ছবিঃ খুব সহজেই চলে আসতে পারেন লা পাজ দেখতে, সূত্রঃ drink tea and travel

যদিও লা পাজ ওয়াটার গার্ডেনস পার্কের টিকেটের মূল্য কিছুটা চড়া। বাংলাদেশী টাকায় প্রায় সাড়ে তিন হাজার টাকা। তবে এই টাকায় পুরো পার্কটি ঘুরে দেখার পাশাপাশি আরও ৪ টি মনোরম ঝর্ণা দেখার সুযোগ পেয়ে যাবেন।    

৭. কাতারাতা দে তোরো

কোস্টারিকার সবচেয়ে উঁচু ঝর্ণাগুলোর একটি এই কাতারাতা দে তোরো। প্রায় ২৭০ ফুট উঁচু থেকে গড়িয়ে পড়ে এর শুভ্র জলধারা। ঝর্ণাটির ঠিক নিচেই আছে আগ্নেয়রিরির ফলে সৃষ্টি হওয়া একটি ছোটখাটো খাদ। ঝর্ণা থেকে প্রায় দুশোটির মতো সিঁড়ি পেরিয়ে দেখতে পারবেন সেটাও। যদিও সাঁতার কাটার অনুমতি নেই এখানে।

ছবিঃ কাতারাতা দে তোরোর বুনো প্রকৃতির সান্নিধ্যে বিমোহিত হতে হবে আপনাকে! সূত্রঃ drink tea and travel

কাতারাতা দে তোরো এখনো এই তালিকার অন্য ঝর্ণাগুলোর মতো তেমন জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি। কাজেই নিখাদ প্রকৃতির সান্নিধ্য পেতে চাইলে নিমেষেই ছুটে যেতে পারেন কাতারাতায়।

আপনিও প্রকৃতির এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। আর কাতারাতা আপনাকে সেটাই মনে করিয়ে দেবে বারবার।

ফিচার ইমেজ- two weeks in costa rica

তথ্যসূত্রঃ

১. The Rough Guides

২. Lonely Planet

৩. Visit Costa Rica

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Booking.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *